আজঃ রবিবার ● ৮ই বৈশাখ ১৪৩১ ● ২১শে এপ্রিল ২০২৪ ● ১১ই শাওয়াল ১৪৪৫ ● বিকাল ৪:২৩
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

চায়নিজ কোম্পানিগুলোর ওপর চাপ প্রয়োগ করবেন ট্রাম্প

ফাইল ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধ করার পর আলিবাবার মতো চায়নিজ কোম্পানিগুলোর ওপর চাপ প্রয়োগ করবেন বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিষিদ্ধ করা হতে পারে আলিবাবাসহ প্রযুক্তি নির্ভর চায়না কোম্পানিগুলোকে।

ট্রাম্পের এই বক্তব্যের পর সাংবাদিকরা জানতে চান নির্দিষ্ট করে চায়না কোম্পানিগুলোকেই কেন নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে? এর উত্তরে ট্রাম্প বলেন, ‘ঠিক আছে তাহলে আমরা অন্য দেশের কোম্পানিগুলোর প্রতিও নজর রাখব।’

ট্রাম্প এরই মধ্যে নিজের দেশেই সমালোচনার মধ্যে পড়েছেন স্বল্প দৈর্ঘের ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটক নিষিদ্ধ করে।

যদিও গত সপ্তাহে জ্যাক মা যুক্তরাষ্ট্র সফরে ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘আমাদের একটি সভা হয়েছিল। যেটি বাণিজ্যের ক্ষেত্রে খুবই কার্যকরি ছিল। এতে খুবই ভালো কিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে। এটিকে আমি বিশ্বে অন্যতম বলব। জ্যাক মা আমেরিকাকেও ভালোবাসেন চায়নাকেও ভালোবাসেন।’

আলিবাবার প্রধান নির্বাহী জ্যাক মা বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত করে বলতে চাই, বাণিজ্য সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে আলিবাবা মোটেও বিচলিত বা হতাশ নয়। বর্তমান বিশ্বে বাণিজ্য যুদ্ধ সবচেয়ে বাজে একটা ব্যপার। বাণিজ্য হচ্ছে বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠার একটি কার্যকরি প্রক্রিয়া। এটি যোগাযোগ বৃদ্ধি করে। অন্তত আগামী ২০ বছর বাণিজ্য সম্পর্কিত কোনো কঠিন সমস্যা হবে না আমাদের। প্রযুক্তির কল্যাণের কারণেই কেউ বিশ্বে মুক্ত বাণিজ্য বন্ধ করতে পারবে না।’

যুক্তরাষ্ট্র টিকটকের মালিক প্রতিষ্ঠান বাইটড্যান্সকে এরই মধ্যে সব কার্যক্রম ৯০ দিনের মধ্যে সরিয়ে নিতে নির্দেশ দিয়েছে। টিকটকের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত গোপনীয়তা এবং তথ্য উপাত্ত সংগ্রহের অভিযোগ ওঠার পর এই সিদ্ধান্ত নিল ট্রাম্প প্রশাসন।

ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বাণিজ্য সম্পর্কে বড় ধরনের পরিবর্তন এনেছে। যার নেতিবাচকতাই বেশি। প্রযুক্তি পণ্যের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের অনীহা আর নিরাপত্তা ভীতি ছড়ালেও চীন থেকে কৃষিপণ্য আমদানি অব্যাহতই থাকছে।

মুবার্তা/এস/ই (কু/বা)

ফেসবুকে লাইক দিন