আজঃ সোমবার ● ১৩ই আশ্বিন ১৪২৭ ● ২৮শে সেপ্টেম্বর ২০২০ ● ১০ই সফর ১৪৪২ ● সকাল ৭:২৬
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

বেনাপোল স্থলবন্দরে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের হয়রানী ও প্রতারক চক্র আটক

ফাইল ছবি

নিউজ ডেস্কঃ বেনাপোল স্থলবন্দরে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের হয়রানী ও প্রতারক চক্র আটক।

পণ্য আমদানী-রপ্তানী ও যাত্রী গমনাগমনের বিবেচনায় বেনাপোল স্থলবন্দর বাংলাদেশের একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্থলবন্দর।

প্রতিদিন প্রায় ৮ হাজার যাত্রী এই স্থলবন্দরের মাধ্যমে বাংলাদেশ হতে ভারতে এবং ভারত হতে বাংলাদেশে গমনাগমন করেন।

ঈদ, পূজাসহ নানাধরণের উৎসবকে কেন্দ্র করে যাত্রীদের গমনাগমনের সংখ্যা দিনে ১০ হাজারও অতিক্রম করে।

ব্যবসা, ভ্রমণ ও চিকিৎসাসহ নানাবিধও কারণে এসকল যাত্রীরা এ স্থলবন্দর ব্যবহার করে দু দেশের মধ্যে গমনাগমন করেন।

বর্তমান মহামারি করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও ইন্ডিয়ান হাই কমিশনের অনুমতি সাপেক্ষে বিভিন্ন যাত্রী চিকিৎসাসহ জরুরী প্রয়োজনে ভারতে গমন করছেন।

এক ধরনের অসাধু ও প্রতারক চক্র দীর্ঘদিন ধরে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের সরলতা ও অজ্ঞতার সুযোগ নিয়ে নানাভাবে প্রতারিত করে আসছে।

এই স্থলবন্দরকে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকটি প্রতারক চক্র সাধারণ যাত্রীদের মানি এক্সচেঞ্জ, দ্রুত পারাপারসহ নানাবিধ সুবিধা প্রদানের প্রলোভন ও মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাত্রীদেরকে প্রতারিত করে নগদ অর্থসহ মালামাল হাতিয়ে নিয়ে থাকে।

এই সংক্রান্তে থানা পুলিশ পূর্বেও এই প্রতারক চক্রের বেশ কিছু সদস্যকে গ্রেফতার করে বিধি মোতাবেক বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করেছে।

গত ০৮/০৯/২০২০ খ্রিঃ চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার মোঃ আঃ লতিফ তার নিজের বোন নুর জাহান, খালাতো বোন নাজমা খাতুন ও আলিমুনকে ভারতে পাঠানোর উদ্দেশ্যে বেনাপোল চেকপোষ্টে আসে।

বেনাপোল চেকপোষ্টে নামার পর একজন প্রতারক তাকে সহজে ভারতে পার করে দেবে এমন প্রলোভন দেখিয়ে বেনাপোল ইমিগ্রেশন সংলগ্ন “যশোর মানিচেঞ্জার” অফিসের পিছনে অবস্থিত একটি দোকান ঘরের মধ্যে তাদেরকে নিয়ে যায়।

পরবর্তীতে তাদেরকে কোনরূপ সেবা ও সুযোগ সুবিধা প্রদান না করে তাদের কাছে জোরপূর্বক সম্পূর্ণ অনৈতিকভাবে ৩ হাজার টাকা দাবী করে।

তারা টাকা দিতে অস্বীকার করলে ১৪/১৫ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি এসে তাদের প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে জোরপূর্বক ৩ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এই ঘটনার সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ভিকটিমদেরকে উদ্ধার করে এবং ঘটনাস্থল থেকে ইয়াছিন আলী নামক একজনকে আটক করে। পরবর্তীতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে সে তার অন্যান্য সহযোগীদের নাম প্রকাশ করে।

এই সংক্রান্তে আঃ লতিফ লিখিত এজাহার দায়ের করলে খুন জখমের ভয়ভীতি প্রদর্শনপূর্বক জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করার অপরাধে বেনাপোল পোর্ট থানার একটি মামলা রুজু হয়।

 

এ সংক্রান্তে ইতোমধ্যেই এই চক্রের মোট ০৬ জন প্রতারককে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। এদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, তারা পাসপোর্টধারী যাত্রীদের সরলতা ও অজ্ঞতার সুযোগ নিয়ে মানিচেঞ্জিং, পণ্য আদান-প্রদান, ভ্রমণ ট্যাক্সসহ অন্যান্য ট্যাক্স এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে পারাপারের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি প্রদানের মাধ্যমে যাত্রীদের প্রতারিত করে থাকে।

মামলাঃ বেনাপোল পোর্ট থানার মামলা নং – ১৫ তাং- ০৮/০৯/২০২০ খ্রিঃ ধারা- ৩৮৬/৩৮৭ পিসি।

ধৃত আসামীদ নামঃ

১। মোঃ ইয়াছিন (৩০), পিতা মোস্তফা মোড়ল, সাং- সাদীপুর,

২। জসিম উদ্দিন (২৯) পিতা মোশাররফ হোসেন, সাং- সাদীপুর

৩। পাভেল সরদার (৩৩) পিতা আঃ আজিজ সরদার, সাং- সাদীপুর

৪। শফিকুল ইসলাম (৩৩) পিতা আকমত আলী, সাং- দুর্গাপুর,

৫। মোঃ লুলু সরদার (৪৮) পিতামৃত চাঁদ আলী, সাং- দুর্গাপুর

৬। মোসলেম হোসেন রকি (৩১) পিতা মোঃ আব্বাস সাং- সাদিপুর,

 

সর্বথানা- বেনাপোল পোর্ট, জেলা- যশোর। সূত্র- district police jashore (ফেসবুক আইডি)

মুবার্তা/এস/ই

ফেসবুকে লাইক দিন