আজঃ শুক্রবার ● ২৯শে চৈত্র ১৪৩০ ● ১২ই এপ্রিল ২০২৪ ● ২রা শাওয়াল ১৪৪৫ ● রাত ৯:৩১
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

বানারীপাড়ায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে নারীর শ্লীলতাহানীসহ ৪ জনকে কুপিয়ে জখম

ফাইল ছবি

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি॥ বরিশালের বানারীপাড়ার বিশারকান্দি ইউনিয়নের কদমবাড়ি গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে এক নারীর শ্লীলতাহানিসহ ৪ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। আহতরা হলেন সাইদুল ইসলাম(৪০) তার ভাগ্নে ইয়াসিন মোল্যাকে (২২) ও মোঃ শরিফুল ইসলাম (১৮) ও বোন মঞ্জুয়রা বেগম।

তাদেরকে পাশ্ববর্তী স্বরূপকাঠি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে সাইদুল ইসলামের কদমবাড়ি গ্রামের জমির মাটি  প্রতিপক্ষরা জোরপূর্বক কেটে বিক্রি করাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সাইদুল ইসলামকে প্রতিপক্ষ শহিদুল¬াহ মেহেদী বেপারী ও তার ভাই নজরুল ইসলাম বেপারী,ছেলে ফাইজুল ইসলাম ও আজিজুল ইসলাম বেদম মারধর করে। একপর্যায়ে তার ডাকচিৎকারে বোন মঞ্জুয়রা বেগম ও দু’বোনের ছেলে  ইয়াসিন ও শরিফুল ঘটনাস্থলে  ছুটে আসলে তাঁদেরকে লাঠি ও দা দিয়ে  কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। এসময় মঞ্জুয়ারা বেগমকে শ্লীলতাহানি করে তার গলায় থাকা স্বর্নের চেইন ছিনিয়ে  নেওয়া হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে স্বরূপকাঠি হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায়  সাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৪ জনকে সুনির্দিষ্ট ও ৩/৪ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে বানারীপাড়া  থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ প্রসঙ্গে আহত সাইদুল ইসলাম জানান, এলাকার চিহিৃত ভূমিদস্যু শহিদুলসহ মেহেদী বেপারীর হাত থেকে  পৈতৃক সম্পত্তি রক্ষা করতে স্থানীয় সংসদ সদস্য শাহে আলমের কাছে গত দুই মাস পূর্বে  লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরে  তিনি বানারীপাড়া থানার তৎকালীন অফিসার (ওসি) শিশির কুমার পাল ও বিশারকান্দির ইউপি চেয়ারম্যান  সাইফুল ইসলাম শান্ত ও সাবেক চেয়ারম্যান ওমর ফারুককে সরজমিনে  তদন্ত করে সঠিক মিমাংশা করার নির্দেশ দেন। ওই সময় ওসি শিশির কুমার পাল বাদী -বিবাদী উভয়ের অচল নামায় স্বাক্ষর নেন। হঠাৎ করে ওসি শিশির কুমার পাল অন্যত্র বদলি হওয়ায় বিষয়টির কোন সুরহা হয়নি। এর মধ্যে বিরোধপূর্ণ সম্পত্তির মাটি কেটে বিক্রির চেষ্টা চালায় আসামীরা। এ বিষয়ে বিশারকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম শান্ত জানান, মোঃ শহিদুলসহ মেহেদী বেপারীকে তিন দফা নোটিশ দিয়ে ইউনিয় পরিষদে শালিস বৈঠকে ডাকা হলেও সে আসেনি।

প্রসঙ্গত বাদীর বাড়ি বিশারকান্দি ইউনিয়নের পশ্চিম উমারেরপাড় গ্রামে ও আসামীদের বাড়ি পার্শ্ববর্তী কদম বাড়ি গ্রামে।

মুবার্তা/এস/ই

ফেসবুকে লাইক দিন