আজঃ বুধবার ● ১৩ই কার্তিক ১৪২৭ ● ২৮শে অক্টোবর ২০২০ ● ৯ই রবিউল-আউয়াল ১৪৪২ ● রাত ১:৩৭
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

আমি তাদের পরিবারের লঞ্চযাত্রা আজীবন ফ্রি করে দিয়েছি- লঞ্চ মালিক

ফাইল ছবি

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধিঃ শনিবার রাতে ঢাকা থেকে এডভেঞ্চার-৯ নামে নিজাম শিপিং লাইন্সের একটি লঞ্চে স্বামীর সঙ্গে ২১০ নম্বর কেবিনে বরিশালে আসছিলেন সন্তান সম্ভবা এক নারী। রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই নারীর কোল আলোকিত করে লঞ্চে জন্ম নেয় ফুটফুটে এক  কন্যা সন্তান।  তাৎক্ষনিক নবজাতকের  নাম রাখা হয় নুসাইবা।

খবর পেয়ে নবজাতককে দেখতে ভিড় করেন লঞ্চের যাত্রীরা। এ সুখবরটি মুহূর্তের মধ্যে চলে আসে লঞ্চের মালিক ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া গ্রামের সন্তান মোহম্মদ নিজাম উদ্দিনের কাছে। তিনি নবজাতকের পরিবারের জন্য ফুল ও মিষ্টি পাঠিয়ে দেন। এ সময় কন্যা সন্তান ও তার বাবা মায়ের জন্য এডভেঞ্চারে যাতায়াত আজীবন ফ্রি করার ঘোষণা দেন তিনি।

জানা গেছে, বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুধল গ্রামের মো. ফোরকান হাওলদার তার সন্তান সম্ভবা স্ত্রী ফাহিমা বেগমকে নিয়ে এডভেঞ্চার লঞ্চে ঢাকা থেকে বরিশাল ফিরছিলেন। রাত ১০টার দিকে ফাহিমা বেগমের প্রসব বেদনা ওঠে।

বিষয়টি লঞ্চ কর্তৃপক্ষকে জানানোর পরে যাত্রীদের মধ্য থেকে এ কাজে পারদর্শী এক নারীকে নিয়ে আসা হয় লঞ্চের ২১০ নম্বর কেবিনে। কিছুক্ষণের মধ্যেই ওই নারীর কোল আলোকিত করে জন্ম নেয় কন্যা সন্তান। এ কাজে সর্বাত্তক সহযোগিতা করেন লঞ্চের সুপারভাইজার মো. সাইফুল ইসলাম। খবর পেয়ে নিজাম শিপিং লাইন্সের স্বত্বাধিকারী মোহম্মদ নিজাম উদ্দিন পরিবারটির লঞ্চ যাতায়াত আজীবনের জন্য ফ্রি করে দেন।

কন্যা সন্তানটির নাম রাখা হয় নুসাইবা। নবজাতক ও তার বাবা মাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। তাদের মুখে মিষ্টি তুলে দেন লঞ্চ কর্তৃপক্ষ। ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া গ্রামের সন্তান নিজাম উদ্দিনের এমন মহানুভবতায় খুশি লঞ্চের অন্য যাত্রীরাও।

মো. ফোরকান হাওলাদার বলেন, লঞ্চের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আজীবন এডভেঞ্চার লঞ্চে যাতায়াত ফ্রি করে দেওয়ার জন্য লঞ্চ মালিক নিজাম উদ্দিনকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

নিজাম উদ্দিন বলেন, বিমানে সন্তান জন্ম নিলে যদি যাতায়াত ফ্রি করা হয়, তাহলে আমরা কেন পারবো না। আমাদের এ ধরণের মানসিকতা তৈরি করতে হবে। লঞ্চে ওই নারীর সন্তান জন্মদানের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। আমি তাদের পরিবারের লঞ্চযাত্রা আজীবন ফ্রি করে দিয়েছি।

মুবার্তা/এস/ই

ফেসবুকে লাইক দিন