আজঃ রবিবার ● ৮ই বৈশাখ ১৪৩১ ● ২১শে এপ্রিল ২০২৪ ● ১১ই শাওয়াল ১৪৪৫ ● বিকাল ৫:৪১
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

ভোটার আইডি সংশোধন, উত্তোলনের কাজগুলো নিজে নিজেই করুন

প্রতিকি ছবি

নাগরিক হিসাবে আমরা বাংলাদেশী। সুতরাং পরিবারের জন্য, সমাজের জন্য, রাষ্ট্রের জন্য বিভিন্ন প্রয়োজনে আমাদের প্রত্যেকের জাতীয় পরিচয়পত্র দরকার। আর এই জাতীয় পরিচয়পত্র পরিবর্তন, সংশোধনের জন্য প্রত্যেককে অফিস আদালতে যেয়ে বারবার কষ্ট করতে হতো। কিন্তু বর্তমানে এমন কষ্ট বাদেই নিজে নিজে ভোটার আইডি কার্ডের সংশোধন ও উত্তোলন করতে পারবে বিশ্বের য কোনো স্থান থেকে। তাহলে আমাদেরকে এর নিয়ম-কানুন জানতে হবে। নিচে নিয়ম-কানুন গুলো দেওয়া হলো-

১. নতুন ভোটার হওয়াঃ আপনি ভোটার হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করে থাকলে, services.nidw.gov.bd তে লগইন করে, “নতুন নিবন্ধন” অপশনে গিয়ে যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিবন্ধিত হয়ে নতুন ভোটার হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করুন। সঠিকভাবে নিবন্ধিত হলে উপজেলা নির্বাচন অফিসে আপনার ছবি ও দশ আঙ্গুলের ছাপ গ্রহন করার জন্য ডাকা হবে। তাছাড়া আপনি কিভাবে আমাদের কাছ থেকে সহযোগীতা পেতে পারেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে উপজেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করার অনুরোধ করা হলো। ভোটার হতে কোনো টাকা লাগে না।

২. অনলাইন থেকে NID কার্ড ডাউনলোডঃ যারা ২০১৯ সালে ভোটার হয়েছেন, তারা সহজেই অনলাইন থেকে বিনামূল্যে NID কার্ড ডাউনলোড করে লেমিনেটিং করে নিতে পারবেন। আপনি যদি আপনার NID নম্বর না জেনে থাকেন, তাহলে services.nidw.gov.bd তে গিয়ে “অন্যান্য তথ্য” তে গিয়ে এন.আই.ডি নম্বরে ক্লিক করুন। ফর্ম নম্বর, জন্ম তারিখ এবং ক্যাপচা পূরণ করে এন.আই.ডি নম্বর জানুন। তারপর হোম পেজ এ চলে যান, সেখানে গিয়ে রেজিষ্টার মেনুতে ক্লিক করুন। তারপর বামপাশে “রেজিষ্টার করুন” অপশনে গিয়ে ক্লিক করুন। তারপর ডাউনলোড করুন, বিনা মূল্যে আপনার NID কার্ড। অনলাইন জাতীয় পরিচয়পত্র সেবা সংক্রান্ত টিউটোরিয়াল দেখুন উপজেলা নির্বাচন অফিস চন্দনাইশ এর ফেসবুক ওয়ালে।

৩. NID সংশোধনঃ আপনার এনআইডি কার্ডের যেকোন তথ্য সংযোজন বিয়োজন করতে চাইলে অর্থাৎ নিজ নামের অথবা স্বামী-স্ত্রী অথবা বাবা-মায়ের নাম সম্পূর্ণ কিংবা আংশিক পরিবর্তন, জন্ম তারিখ, ব্লাড গ্রুপ, মোবাইল নম্বর, বৈবাহিক অবস্থা, ভোটার এলাকা নম্বর, শিক্ষাগত যোগ্যতা সহ অন্যান্য বিষয় পরিবর্তন করতে চাইলে, অনলাইনে (services.nidw.gov.bd) আবেদন করতে পারবেন। আপনি কি সংশোধন করবেন, তার জন্য কোন্ কোন্ পেপার সাবমিট করবেন, তা জানতে হবে। আপনি সংশোধন করবেন যা, তার জন্য অপ্রয়োজনীয় কাগজ দিয়ে রেখেছেন, তাহলে কিন্তু সংশোধন হবে না বরং হয়রানিতে পড়বেন। সঠিক তথ্য জেনে, সঠিক কাগজ সাবমিট করুন। সংশোধনী ফি ১ম বার ২৩০ (দুইশত ত্রিশ) টাকা, ২য়বার ৩৪৫/=, ৩য় বার ৪৬০/=। একবার একটা বিষয় সংশোধন করলে, ঐ বিষয়টি আর ২য় বার সংশোধন করার সুযোগ নেই। এই বিষয়ে, বিস্তারিত তথ্য পাবেন, services.nidw.gov.bd এর “সাধারণ জিজ্ঞাসা” মেনুতে। 

৪. হারানো NID কার্ডঃ আপনার মূল এনআইডি কার্ড যদি হারিয়ে যায়, প্রথমেই নিকটস্থ থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করবেন। জিডি করতে কিন্তু টাকা লাগে না। আপনি যদি নতুন করে NID কার্ড উঠাতে চান, তাহলে জিডি কপি দিয়ে অনলাইনে (services.nidw.gov.bd)  আবেদন করুন। প্রথমবার আবেদনে ২৩০/= ( দুইশত ত্রিশ টাকা), ২য় বার আবেদন ৩৪৫/= (তিনশত পঁয়তাল্লিশ টাকা), ৩য়বার আবেদন ৪৬০/= (চারশত ষাট টাকা) লাগে। ফি রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে পরিশোধ করা যায়। 

যেভাবে রকেটে ফি জমা দিবেন- নিন্মের প্রক্রিয়া অনুসরণ করুন।

৫. ফি জমাদান পদ্ধতিঃ প্রথমে আপনার মোবাইলের ডায়ালপ্যাডে গিয়ে *৩২২# তে ডায়াল করুন। তারপর Bill pay অপশনে যাবেন। তারপর Self অপশনে যান। Biller ID 1000 লিখে সেন্ড করুন। তারপর আপনার ১০/ ১৭ ডিজিটের NID নম্বর লিখুন, সেন্ড করুন। এবার অনেক গুলো অপশন দেখতে পাবেন, আপনি যেই সমস্যার জন্য আবেদন করছেন, ঐ অপশনে ডায়াল করুন, কত টাকা কেটে নিবে ওখানে অটোমেটিক দেখতে পাবেন। এখন আপনার রকেট মোবাইল ব্যাংকিং নম্বর দিয়ে, পিন নম্বর দিয়ে টাকা জমা দিন। 

আপনি services.nidw.gov.bd এর হোম পেজ এ “হোম” এর নিচে ফিস/চার্জ এ হিসাব করতে পারবেন কোন সেবার জন্য আপনার কত টাকা লাগবে।

যাবতীয় তথ্যের জন্য services.nidw.gov.bd তে লগইন করে, “সাধারণ জিজ্ঞাসা” অপশনে ক্লিক করুন। এনআইডি সেবা সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় সকল তথ্য জানতে পারবেন।

সূত্রঃ ইন্টারনেট-মু বার্তা/এস এ

 

ফেসবুকে লাইক দিন