আজঃ রবিবার ● ২রা আষাঢ় ১৪৩১ ● ১৬ই জুন ২০২৪ ● ৯ই জিলহজ্জ ১৪৪৫ ● বিকাল ৩:৩৩
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

বাওড়ের ম্যানেজার ইমদাদ হোসেন সরকারি গাছ অবৈধভাবে বিক্রি করে দিচ্ছেন

ফাইল ছবি

চৌগাছা প্রতিনিধিঃ যশোরের চৌগাছার বেড়গোবিন্দপুর বাওড়ের ম্যানেজার ইমদাদ হোসেন সরকারি বাওড় ও বাওড়ের অন্তর্ভুক্ত বিলের মূল্যবান গাছ কোন টেন্ডার বা নিলাম ছাড়াই অবৈধভাবে বিক্রি করে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার সকালে দুই লক্ষাধিক টাকা মূল্যের এই গাছ ট্রলি গাড়িতে চৌগাছা পৌরসদরের কুঠিপাড়া কাঠের মিলে নেয়ার পথে কাঠ বোঝাই নছিমনসহ চালক স্থানীয় এক সাংবাদিকের ক্যামেরাবন্দি হন।

বাওড় পার্শ্ববর্তী গ্রামের বাসিন্দারা বলছেন, শনিবার যে গাছ মিলে বিক্রি করেছেন ম্যানেজার তার আনুমানিক মূল্য ২ থেকে ৩ লাখ হবে। তাদের অভিযোগ বাওড় এবং বাওড়ে বিলের পাড়ে যেসব মূল্যবান গাছ ছিল বিগত কয়েক বছরে বিভিন্ন অজুহাতে ম্যানেজার সেগুলোর প্রায় সব কেটে বিক্রি করে দিয়েছেন। যার মূল্য ২০ লাখ টাকার বেশি হবে বলেও জানান তারা।

শনিবার সকালে গাছ স-মিলে নেয়ার সময় গাড়ি (ট্রলি) চালক বেড়গোবিন্দপুর গ্রামের শরিফুল ইসলাম জানান, বাওড় অফিস থেকে গাছ নিয়ে তিনি কাঠমিলে (স-মিল) নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি জানান এটি ২য় গাড়ি। এর আগে একগাড়ি মিলে রেখে এসেছি। এই গাছ কে বিক্রি করলো জানতে চাইলে তিনি বলেন বাওড়ের ম্যানেজার (নাম বলতে পারবো না) আমাকে কাঠ মিলে নেয়ার জন্য গাড়িতে তুলে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বাওড় ম্যানেজার ইমদাদ হোসেন বলেন, কোন গাছ টেন্ডার বা নিলাম করা হয়নি। আম্পানে (গত ২০ মে এ অঞ্চলের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া প্রলয়ঙ্কারী ঘূর্ণিঝড়) পড়ে যাওয়া গাছ রয়েছে। তবে তার দাবি সে গাছগুলো বাওড়ের স্টোরে রয়েছে। তাহলে স-মিলে যে গাছ নেয়া হচ্ছে এগুলো কোনগাছ প্রশ্ন করলে তিনি কোনা জবাব দিতে পারেন নি।

অনেক আগে থেকেই চৌগাছার সরকারি এ বাওড়টির ম্যানেজার ইমদাদুল হক এর বিরুদ্ধে মাছ চুরি করে বিক্রি করে দেয়াসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে।

মুবার্তা/এস/ই

ফেসবুকে লাইক দিন