আজঃ শনিবার ● ২৫শে জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ ● ৮ই জুন ২০২৪ ● ২৯শে জিলক্বদ ১৪৪৫ ● রাত ১:২১
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

করোনা টেস্টের নামে শ্লীলতাহানি

প্রতিকি ছবি

করোনা টেস্ট করাতে গিয়ে এক মহিলা শ্লীলতাহানির শিকার হলেন। এক ল্যাব টেকনিশিয়ান তাঁর গোপনাঙ্গ থেকে সোয়াব সংগ্রহ করার নাম করে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে। সেই মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে ল্যাব টেকনিশিয়ানকে মহারাষ্ট্রের অমরাবতী জেলা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। মহারাষ্ট্রের মহিলা ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী যশোমতি ঠাকুর এমন ঘটনায় স্তম্ভিত। তিনি ওই ল্যাব টেকনিশিয়ান-এর কড়া শাস্তি হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। অমরাবতী থেকে দেশ প্রথম মহিলা রাষ্ট্রপতি (প্রতিভা পাটিল) পেয়েছিল। সেই অমরাবতীতেই এমন জঘন্য ঘটনা!

ওই মহিলা অমরাবতীর একটি শপিং মলে চাকরি করেন। ২৪ জুলাই ওই মলে কর্মরত একজনের শরীরে করোনার উপস্থিতি ধরা পড়ে। এর পরই মলের মোট ২৫ জন স্টাফ করোনার পরীক্ষার জন্য ল্যাবে আসেন। অমরাবতীর ওই ল্যাবে ২৫ জনের লালারস সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু ওই ল্যাব টেকনিশিয়ান অভিযোগকারীনিকে আলাদা করে ডেকে নেন। তার পর তাঁর প্রাইভেট পার্টস থেকে সোয়াব সংগ্রহ করার অছিলায় শ্লীলতাহানি করেন। ঘটনার আকস্মিকতায় হকচকিয়ে যান সেই মহিলা। তার পর তিনি পুলিসের কাছে অভিযোগ করেন।

ওই ল্যাব টেকনিশিয়ান-এর বিরুদ্ধে ধর্ষণ (৩৭৬) ছাড়াও ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিস প্রশাসন। অমরাবতীর কালেক্টর শৈলেশ নাভালও অভিযুক্তের শাস্তির ব্যাপারে উঠেপড়ে লেগেছেন। অমরাবতীর পুলিস-প্রশাসন জানিয়েছে, ভবিষ্যতে এই ধরণের টেস্টের সময় ল্যাবের কর্মীদের উপর কড়া নজর রাখা হবে।

সুত্রঃ ইন্টারনেট

ফেসবুকে লাইক দিন