আজঃ শুক্রবার ● ৬ই বৈশাখ ১৪৩১ ● ১৯শে এপ্রিল ২০২৪ ● ৮ই শাওয়াল ১৪৪৫ ● রাত ১২:৩৩
শিরোনাম

By মুক্তি বার্তা

অসুস্থ্য আরমানের পরিবারকে বিভিন্ন মহল থেকে অর্থ প্রদান, পৌছালেন সাংবাদিক আজিজুর রহমান

অসুস্থ্য আরমানের মায়ের হাতে সাহায্যের নগদ অর্থ প্রদান

চৌগাছার বাঘারদাড়ি গ্রামের আরমান শরিফ নামের ৭ম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলেটি একসিডেন্টের পর গুরুতর আহত হয়ে বাড়িতে কাতরাচ্ছে। ১৮ জুলাই “স্বাধীনআলো ডট কমে” নিউজ করেছিলেন চৌগাছার বিশিষ্ট সাংবাদিক আজিজুর রহমান।
নিউজটি দেখে প্রবাস থেকে এক ভাই তার বিকাশ নম্বরে ছেলেটির জন্য ৫ হাজার টাকা পাঠান। সেটি ২১ জুলাই সকাল সাড়ে দশটার সময় আরমানের বাড়িতে গিয়ে  তার মায়ের হাতে দিয়ে আসেন।

ক্যান্সার আক্রান্ত আরমানের মায়ের হাতে নগদ অর্থ প্রদান

এরপর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত আমার মামাতো ভাই আতাউর রহমান ৭ হাজার, পুলিশ কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন (কিছুদিন আগে চৌগাছা থানায় ছিলেন) ১ হাজার, একজন ব্যাংক কর্মকর্তা ১ হাজার, চৌগাছার একটি সরকারি প্রাইমারী স্কুলে কর্মরত একজন ১ হাজার, এলজিইডি চৌগাছায় কর্মরত হিসাব সহকারী মেশকাত জাহান ইলা ১ হাজার এবং কাতার প্রবাসী লোকমান হোসেন ৫ হাজার টাকা। মোট ১৬ হাজার টাকা বিকাশসহ বিভিন্ন মাধ্যমে সাংবাদিক আজিজুর রহমানের কাছে পাঠান।
আবহাওয়া ও ব্যক্তিগত কারনে টাকাগুলি দিয়ে আসতে একটু দেরি হলেও আজ বুধবার (৫আগষ্ট) বেলা ১২ টার সময় টাকাগুলো ছেলেটার মা’য়ের হাতে দিয়ে আসেন সাংবাদিক আজিজুর রহমান।
সাহায্যপ্রাপ্ত নগদ অর্থ আরমান শরিফের মায়ের হাতে তুলে দেবার সময় সাথে ছিলেন চৌগাছা প্রসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও মৃধাপাড়া মহিলা কলেজের প্রভাষক অমেদুল ইসলাম, প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি রহিদুল ইসলাম খান, সাহিত্য সাংস্কৃতিক সম্পাদক বাবুল আক্তার ও দপ্তর সম্পাদক এইচএম ফিরোজ। 

আরমান ও তার মা

কিন্তু দুঃখের বিষয় আজ ওদের বাড়ি গিয়ে আরও  জানা যায় আরমানের বাবা ঢাকায় হাসপাতালে রয়েছেন। আজ রাতেই আরমানকে ঢাকায় নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করতে বলেছেন চিকিৎসকরা। দ্রুত তাকে কেমোথেরাপি দিয়ে ওর বাম পাজরের ভাঙ্গা জায়গায় অপারেশন করতে হবে।
আরমান শরিফের মা সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আহবান জানিয়েছেন এভাবে সবাই এগিয়ে আসলে আমার মেধাবী ছেলেটি আবার স্বাভাবিক হয়ে যাবে। তিনি সবার কাছে দোয়া ও সহযোগিতা চেয়েছেন। চিকিৎসকরা বলেছেন ওর চিকিৎসায় ৬/৭ লক্ষ টাকা খরচ হবে। দুটি অপারেশন করলেই ছেলেটি সুস্থ হতে পারবে।
উল্লেখ্য, আরমান শরিফের শরীরে মরণব্যাধি ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে। চি‌কিৎসার অভা‌বে একটু একটু ক‌রে মৃত্যুর দি‌কে এ‌গি‌য়ে যা‌চ্ছে সে।

শরীফ যশোরের চৌগাছা উপজেলার স্বরুপদাহ ইউনিয়নের বাঘারদাড়ি গ্রামের আব্দুল্লাহ হোসেন লাল্টুর ছেলে ও স্বরুপদাহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির মেধাবী ছাত্র।

আরমানের বাবা চৌগাছা শহরে তালা চাবির ম্যাকানিকের কাজ করেন। যৎ সামান্য আয়ে খেয়ে না খেয়ে ৫ ছেলে মেয়ে সহ ৭ সদস্যের সংসার চলে তার। বর্তমানে সময়ে করোনার কারনে খরিদ্দার নেই বল্লেই চলে বলেন আরামানের বাবা লাল্টু।

আরমান শরিফ ও তার বাবা-মা

আরমান শরিফের মা ছায়েরা বেগম ও পরিবারের সদস্যরা জানান, এখন থেকে দুই বছর পূর্বে বাড়ির পাশের রাস্তায় সাইকেল থেকে পড়ে গিয়ে বাম পা ও কোমরে আঘাত পায় সে। ঘটনার দিনেই চৌগাছা সরকারি হাসপাতালের অর্থপেডিক ডা. ইউনুচ আলীর কাছ থেকে চিকিৎসা নেয়া হয়। সেখান থেকে কিছু ঔষধ খাওয়ার পরে পায়ের ব্যাথা ভালো হয়ে যায়।

কিন্তু রয়ে যায় কোমরের ক্ষীন ব্যাথা। দুই বছর পরে আরমান আবারো গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। প্রথমে ডা. ইউনুচ ও যশোরের আব্দুর রউফকে দেখানো হয়। এতেও সুস্থ্য না হলে খুলনার মাইক্রোলজি বিশেষজ্ঞ ডা. তুষার আলমকে দেখানো হয়। সেখানে পরীক্ষার পরে ধরা পড়ে শরিফের কোমরের ৯ নং হাড় ভেঙ্গে রয়েছে। যে কারনে ভাঙ্গা হাড়ের থেকে ক্যালসিয়াম কোমরের নিচে বাম পায়ের উরুতে টিউমার আকার ধারণ করেছে। সেখানে বাসা বেঁধেছে ক্যান্সার । বর্তমানে ঢাকার ক্যান্সার হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হচ্ছে। বর্তমা‌নে আরমান স্বাভা‌বিক ভা‌বে পেশাব পায়খানা কর‌তে পা‌রেনা । কৃ‌ত্রিমভা‌বে ক্যা‌থে‌টে‌রিয়ার দি‌য়ে চল‌ছে পেশাব পায়খানা ।

একদিকে করোনা প্রাদূর্ভাব অন্যদিকে টাকার অভাবে বর্তমানে চিকিৎসা বন্ধ করে বাড়িতেই রাখা হয়েছে আরমানকে। আরমান শরিফের বাবা জানান, ম্যাকানিকের কাজ করে সংসারই চলেনা। তার পরেও সহায় সম্বল বিক্রী করে প্রায় ২ লাখ টাকা খরচ করেছি চিকিৎসার জন্য। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন দু’এক মাসের মধ্যে অপারেশন করলে সম্পূর্ণ ভালো হয়ে যাবে আরমান শরিফ। অপারেশন করতে খরচ হবে ৬/৭ লাখ টাকা। আমার সহায় সম্বল সব বিক্রি করা শেষ। চৌগাছা ডিভাইন গ্রুপের অনুদানের ভিটেবাড়ি ছাড়া কিছুই নেই আমার। এখন স্থানীয়দের সহযোগীতায় ঔষুধ কিনতে হচ্ছে। কেউ সাহায্য না করলে ঔষুধ কিনতে পারছিনা। এত টাকা পাবো কোথায় ? টাকার অভাবে বর্তানে চিকিৎসা বন্ধ করে বাড়িতে রেখেছি।

ছেলেকে বাঁচাতে উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, ডিসিসহ সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের অনুরোধ করেছেন শরিফের পিতা লাল্টু ও মাতা ছায়েরা বেগম।

এই ব্যাপারে সাহায্য পাঠাতে যোগাযোগ করতে বলা হয় এই দু‌টি সেল‌ফো‌নে ০১৭৪০৪৬৭৫৭২ ও ০১৭৮৪৫৭১২১২। নম্বর দু‌টি‌তে বিকাশ খোলা আছে।

ফেসবুকে লাইক দিন