আজঃ রবিবার ● ১১ই আশ্বিন ১৪২৮ ● ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২১ ● ১৮ই সফর ১৪৪৩ ● সন্ধ্যা ৭:৩০
শিরোনাম

By: মুক্তি বার্তা

বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে নির্মিত হচ্ছে স্বপ্নের সেতু

ফাইল ছবি

রাহাদ সুমন,বিশেষ প্রতিনিধি॥
বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার মাঝ দিয়ে প্রবাহিত সন্ধ্যা নদীতে স্বপ্নের সেতু নির্মিত হচ্ছে। সেতু  নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাই ও ডিজাইনসহ প্রাথমিক কার্যাদি সম্পন্ন করতে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের সেতু বিভাগ থেকে শিগগিরই কনসালট্যান্ট (বিশেষজ্ঞ) নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। এরআগে গত বছরের নভেম্বর ও চলতি বছরের জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারী মাসে কয়েক দফা স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. শাহে আলমের নেতৃত্বে এলজিইডির প্রকল্প পরিচালক মো. এবাদত আলী  ও কাজী মিজানুর রহমানসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সন্ধ্যা নদীর তীরবর্তী পৌর শহরের ২ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ নাজিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সম্মুখে সন্ধ্যা নদীর ওপরে সেতু নির্মাণের সম্ভাব্যতা এবং সম্ভাব্যস্থান পরিদর্শন করেন। জানা গেছে, সন্ধ্যা নদীসহ দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ৬টি নদীতে ব্রিজ নির্মাণের জন্য প্রকল্পের প্রস্তাব গৃহীত হওয়ার পরে এখন কনসালট্যান্ট নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে এবং সকল প্রক্রিয়া শেষে সেতু নির্মাণ কাজ দৃশ্যমান হবে।

এ প্রসঙ্গে সন্ধ্যা নদীতে সেতু নির্মাণের স্বপ্নদ্রষ্টা স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. শাহে আলম বলেন, সন্ধ্যা নদীতে সেতু নির্মাণ তার আজীবনের লালিত স্বপ্ন। এ স্বপ্ন বাস্তবায়িত হলে এ অঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থায় যুগান্তকারী সেতুবন্ধন সৃষ্টি হবে।  কৃষি ও মৎস্য সম্পদসহ সার্বিক অর্থনীতি ও আর্থসামাজিক ব্যবস্থায় অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হওয়ার পাশাপাশি গ্রামীণ জনপদ শহুরে জনপদে রূপান্তর হবে। প্রসঙ্গত, বানারীপাড়ার সন্ধ্যা নদীতে সেতু নির্মিত হলে বরিশাল বিভাগের বেশ কয়েকটি উপজেলার মানুষ এই সেতুটি ব্যবহার করে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধীস্থলে খুব সহজেই যেতে পারবেন। এছাড়া বরিশালের সঙ্গে পিরোজপুর,গোপালগঞ্জ,খুলনা,ঝিনাইদহ,কুষ্টিয়া ও যশোরসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকার সঙ্গে সহজতর পথে যোগাযোগ ব্যবস্থায় নবদিগন্ত সূচিত হবে। উল্লেখ্য, বানারীপাড়া উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টি’ই সন্ধ্যা নদীর পশ্চিমপাড়ে এবং সেখানে রয়েছে বিভিন্ন ধরণের কৃষির অপার সম্ভাবনা। সেতুটি  নির্মিত হলে সেই সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন হয়ে দেশের অর্থনীতিতে এই অঞ্চলের কৃষকরা অভূতপূর্ব সাড়া জাগাতে পারবেন। সেতুটি নির্মিত হলে ১৯৬৫ সালে নদীর পশ্চিমপাড় বাইশারী ইউনিয়নের শিয়ালকাঠি হয়ে পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার সঙ্গে সড়ক নির্মাণের যে রূপরেখা তৈরি হয়েছিলো সেটারও বাস্তবায়ন হবে। উল্লেখ্য বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি এবং স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মো. শাহে আলম জাতীয় সংসদে সন্ধ্যা নদীর ওপরে সেতু নির্মাণের দাবী জানিয়েছিলেন। যেটা ছিলো তার নির্বাচনকালীন জনসাধারণের কাছে দেওয়া অঙ্গীকার। সংসদের তার সেই দাবীর প্রেক্ষিতে সেতু নির্মাণ প্রক্রিয়া দিনানদিন বাস্তবরূপ লাভ করে স্বপ্ন পূরণের পথে রয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন