আজঃ শনিবার ● ২৯শে আষাঢ় ১৪৩১ ● ১৩ই জুলাই ২০২৪ ● ৬ই মুহাররম ১৪৪৬ ● দুপুর ১২:৪৯
শিরোনাম

গরম পানি খাওয়ায় উপকার এবং অপকার দুইটাই হতে পারে

গরম পানি খাওয়ায় উপকার এবং অপকার দুইটাই হতে পারে

  • গরম পানি খাওয়ার উপকারীতাঃ পৃথিবীর সকল মানুষেই জানে পানি জীবনের অমূল্য সম্পদ। চিকিৎসা বিজ্ঞান বলে পানির অপর নাম জীবন। আর এই পানি যদি হয় একটু উষ্ণ গরম। তাহলে কেমন হয়। আসলেই এই উষ্ণ গরম কি কোনো উপকার আছে? তাহলে জেনে নিই উষ্ণ গরম পানি খাওয়ার উপকারীতাঃ

আপনার কি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা? থবা হজমের সমস্যা? এমনই অনেক স্বাস্থ্য সমস্যার সহজ সমাধান হল কয়েক গ্লাস উষ্ণ গরম পানি। প্রতিদিন কয়েক গ্লাস হালকা গরম পানি নিয়মিত খেতে পারলে একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

জেনে নেই উষ্ণ গরম পানি দেহের কি কি উপকারে আসে :

০১. দীর্ঘদিন ধরে কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগছেন? সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে এক গ্লাস হালকা গরম পানি খেতে পারলে পেট সহজেই পরিষ্কার হয়ে যাবে। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া যাবে।

০২. আমরা অনেকেই খেতে বসে পানি খাই। এতে খাবারের সঙ্গে পাচক রস সঠিক ভাবে মিশতে পারে না। ফলে হজমের নানা সমস্যা দেখা দেয়। খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে বা পরে যদি এক গ্লাস উষ্ণ গরম পানি খাওয়া যায় তাহলে অ্যাসিডিটি, বদহজমের মতো একাধিক সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব। এই পানি খাবার দ্রুত হজমেও সাহায্য করে।

০৩. দ্রুত মেদ ঝরাতে উষ্ণ গরম পানি অত্যন্ত কার্যকর। এই পানি খেলে শরীরের মেটাবলিক রেট বাড়ে এবং সহজেই অনেকটা ক্যালোরি পোড়ে। হালকা গরম পানি খিদে বোধ কমিয়ে ওজন কমাতেও সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই পানির সঙ্গে পাতিলেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারলে মেদ ঝরবে দ্রুত।

০৪. সাধারণ তাপমাত্রার পানির চেয়ে উষ্ণ গরম পানি খেতে পারলে শরীরের ভেতরের তাপমাত্রাটা সামান্য হলেও বৃদ্ধি পায় এবং ঘাম হয় বেশি। অতিরিক্ত ঘাম হওয়ার ফলে শরীরে জমে থাকা অপ্রয়োজনীয় উপাদান ঘামের সঙ্গে বাইরে বেরিয়ে যায়। এতে শরীর দ্রুত ডিটক্স অথবা ব্যথামুক্ত হয়ে যায়।

০৫. প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই হালকা গরম পানি খেলে যেমন শরীরের আভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা বাড়ে তেমনি এই তাপমাত্রা শরীরের শিরা, ধমনীতে রক্তচলাচলের গতিও স্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি করে। রক্ত চলাচল ঠিক থাকলে হৃদরোগ সংক্রান্ত যাবতীয় রোগের উপশম ঘটে।

০৬. দীর্ঘদিন ধরে বাতের ব্যথায় ভুগছেন? এই ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে খান এক গ্লাস উষ্ণ গরম পানি। ফলে শরীরের সক্ত সঞ্চালন বাড়বে, শরীরে জমে থাকা অপ্রয়োজনীয় উপাদান ঘামের সঙ্গে বাইরে বেরিয়ে যাবে। ফলে ব্যথা বোধও ক্রমশ কমে আসবে। এর সঙ্গে সঙ্গে ব্রণ-ফুসকুড়ির সমস্যা থেকেও সহজেই দূরে থাকা যাবে।

০৭. পুষ্টিবিদরা বলেন, পেট পরিষ্কার থাকলে শরীরের অনেক রোগ আমাদের ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। পেট পরিষ্কার থাকলে ত্বকও থাকে ঝকঝকে, উজ্জ্বল। প্রতিদিন সকালে খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে বা পরে যদি এক গ্লাস হালকা গরম পানি খাওয়া যায় তবে ত্বকে জমাট বাধা তেল, ধুলোবালি থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া যাবে।

গরম পানি খাওয়ার অপকারীতাঃ গরম পানি খেলে যেমন উপকার হয় তেমনি কিছু অপকারী দিকও আছে। নিচে আমরা লেবুর রস মিশিয়ে খেলে গরম পানির কি অপকারীতা হয়ে থাকে তা সম্পর্কে জানবো-

০১. গরম পানিতে সাইট্রিক অ্যাসিডের কার্যক্ষমতা ভীষণ বাড়ে ফলে এসিডিটি বেড়ে যেতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বেড়ে যায়।

০২. গরম পানিতে লেবুর রস দেওয়া মাত্র এর ভিটামিন সি নষ্ট হয়ে যায়। ফলে আপনার শরীরে কোনও প্রকার ভিটামিন প্রবেশ করছে না
০৩.দাঁতের এনামেলের মারাত্মক ক্ষতি হয়। এমনিতে লেবু খেলে দাঁত টক হয়ে যাওয়ার অনুভূতি সবার কাছে পরিচিত। এটিই এনামেলের ওপর আঘাত হানে। আর গরম পানির সঙ্গে সাইট্রিক এসিড আরও ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। ফলে খুব দ্রুত দাঁত নষ্ট হতে থাকে।
০৪. লেবু গরম পানি খাওয়ার পর পর পেট ভরে খাবার না খেলে পেটে ব্যথা শুরু হতে পারে।
০৫. আবার স্থূলকায় হওয়ার পরও যাদের ব্লাড প্রেসার লো, তাদের প্রেসার আরও লো করে দেয় এই লেবু গরম পানি।

ফেসবুকে লাইক দিন