আজঃ সোমবার ● ২৯শে চৈত্র ১৪২৭ ● ১২ই এপ্রিল ২০২১ ● ২৯শে শাবান ১৪৪২ ● রাত ৯:২৩
শিরোনাম

By: মুক্তি বার্তা

নান্দাইলের কামাল গৌরিপুরের রাবেয়াকে ফোনে ডেকে  ঈশ্বরগঞ্জে হত্যা 

ফাইল ছবি

নান্দাইল ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে রাবেয়া খাতুন হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। এ ঘটনায় মো. কামাল ফকির (৩৭) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
গ্রেফতারকৃত কামাল ফকির জেলার নান্দাইল উপজেলার উত্তর পালাহার গ্রামের মো. আবুল হাসেম ফকিরের ছেলে।
বৃহস্পতিবার (০১ এপ্রিল) দুপুরে ময়মনসিংহ ৪ নং আমলী আদালতের বিচারক মাসুম মিয়ার কাছে সোর্পদ করা হলে কামাল ফকির হত্যার দায় স্বীকার করেন।
বিকালে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা শাখার পাঠানো এক প্রেস বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।
এর আগে (৩১ মার্চ) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে জেলার ঈশ্বরগঞ্জ থানা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
এ বিষয়ে জেলা গোয়েন্দা শাখার শাহ কামাল আকন্দ বলেন, নিহত রাবেয়ার সাথে পুর্ব থেকেই কামাল ফকিরের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এই সম্পর্কের জেরেই রাবেয়া কামালের কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা ধার নেয়।
ঘটনার দিন সোমবার (২৯ মার্চ) রাতে কামাল ফকির টাকার জন্য রাবেয়াকে বাড়ি থেকে ধান ক্ষেতের কাছে ডেকে আনে। রাবেয়া আসতেই কামাল ফকির তার কাছে পাওনা ৫ হাজার টাকা চায়। এমতাবস্থায় রাবেয়া উল্টো ধর্ষণ মামলা হুমকি দিয়ে আরও ৫ হাজার টাকা দাবি করে।
এ সময় কামাল রাবেয়াকে মারধর করে মাটিতে ফেলে কলা গাছের ডগা (ডাল) গলায় পেঁচিয়ে হত্যা করে ফেলে চলে যায়।
পরদিন মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) দুপুরে উপজেলার মগটুলা ইউনিয়নের গালাহার গ্রামের রাস্তার পাশের ধানক্ষেত থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।
পরে ওই দিন রাতেই নিহত রাবেয়ার মা বিলকিস আক্তার বাদী হয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।
নিহত রাবেয়া খাতুন (৩০) ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার সুন্দাইল পাড়ার হাদিস মিয়ার মেয়ে।

ফেসবুকে লাইক দিন