আজঃ শনিবার ● ৯ই শ্রাবণ ১৪২৮ ● ২৪শে জুলাই ২০২১ ● ১৩ই জিলহজ্জ ১৪৪২ ● সন্ধ্যা ৭:৪৮
শিরোনাম

By: মুক্তি বার্তা

চৌগাছায় প্রভাবশালী বিএনপি নেতার টাকা চুরির ভিডিও ভাইরাল

ফাইল ছবি

চৌগাছা প্রতিনিধিঃ

যশোরের চৌগাছায় উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক এমএ সালামের টাকা চুরির একটি সিসিটিভি ফুটেজ ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। গত সোমবার সন্ধ্যার কিছু পরেই সিসিটিভি ফুটেজটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ভাইরাল হয়।
এমএ সালাম উপজেলার কয়ারপাড়া গ্রামে বিশিষ্ট ব্যবসায়ি মফেজ ধনীর ছেলে। চৌগাছা সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সালাম বর্তমানে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
এঘটনায় উপজেলাসহ জেলার রাজনৈতিক অঙ্গনে হাস্যরসের সৃষ্টি হলেও জেলা ও উপজেলা বিএনপি শিবিরে চাপা ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে।
সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহবায়ক এম এ সালাম ওরফে সালাম ধনী তার মালিকাধীন মার্কেটের জাহিদ ইলেকট্রনিক্স নামে একটি দোকানের ক্যাশ ড্রয়ার থেকে টাকা চুরি করছেন। তারআগে দোকানে বসে থাকা কর্মচারিকে টাকা দিয়ে কিছু একটা কিনে আনতে বাইরে পাঠাচ্ছেন বিএনপির এই নেতা।
উপজেলা বিএনপি কেউ কেউ এটাকে মিথ্যা ঘটনা বলে চালানোর চেষ্টা করলেও অনেকে এটাকে নৈতিকতার স্ফলন ও স্বভাব দোষ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।
উপজেলা বিএনপির এক সময়ের প্রচন্ড প্রতাপ ও প্রভাবশালী এই নেতার এধরনের কাজে দিশেহারা উপজেলা বিএনপি। এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক জহুরুল ইসলাম.যুগ্ম-আহবায়ক ইউনুচ দফাদার,মাসুদুল হাসানসহ উপজেলা বিএনপি এমনকি জেলা বিএনপির কোনো নেতাই বক্তব্য দিতে রাজি হননি। তবে কেউ কেউ এ ঘটনাকে স্বভাব দোষ বলে উল্লেখ করেন। কোনো নেতা আবার বলেন,“সন্মানের মালিক আল্লাহ। কেউ যদি নিজের সন্মান না রাখতে পারেন তবে আমাদের কিই বা বলার আছে”। তবে উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব রকি ভিডিওটিকে মিথ্যা দাবী করেন।
এবিষয়ে জানতে মঙ্গলবার সকাল ১০.৪৭ মিনিট থেকে বেশ কয়েকবার এমএ সালামের ব্যবহৃত মুঠো ফোন ০১৭৩৬-২০২২১৬নাম্বারে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও সেটি বন্ধ থাকায় যোগাযোগ সম্ভব হয়নি।
দোকানের মালিক জাহিদ বলেন এ ঘটনা প্রায় ১বছর আগের হলেও চুরির ঘটনা নতুন নয়। এই চুরির আগেও তিনি (এমএ সালাম) অনেকবার এভাবে টাকা নিয়েছে। সেদিন তিনি ক্যাশ থেকে ২০০/ টাকা নিয়েছিলেন বলেও জানান জাহিদ। জাহিদ আরো বলেন,তার (এমএ সালাম) মার্কেটেই দোকান ভাড়া নিয়ে আমি ব্যাবসা করি। কাজেই কোনো প্রকার বিচারের আশা করলে ব্যাবসার জায়গাটা হারিয়ে ফেলতে পারি।
এ বিষয়ে চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন,এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মুবার্তা/এস/ই

ফেসবুকে লাইক দিন