আজঃ শুক্রবার ● ৯ই আশ্বিন ১৪২৮ ● ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০২১ ● ১৬ই সফর ১৪৪৩ ● সকাল ৯:০০
শিরোনাম

By: মুক্তি বার্তা

বানারীপাড়ায় দু’টি বিদ্যালয় সন্ধ্যা নদীর ভাঙ্গন থেকে রক্ষার দাবীতে মানববন্ধন

ফাইল ছবি

রাহাদ সুমন, বিশেষ প্রতিনিধি॥ বরিশালের বানারীপাড়ায় ইলুহার ইউনিয়নের বিহারী লাল একাডেমী ও পূর্ব ইলুহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় দু’টি সন্ধ্যা নদীর সর্বনাশা ভাঙ্গন থেকে রক্ষার দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী এ বিদ্যালয় দুটি উপজেলার ইলুহার ইউনিয়নের পূর্ব ইলুহার গ্রামসহ পার্শ্ববতী কয়েকটি গ্রামের শিক্ষার আলোর বাতিঘর হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। ওই এলাকার সন্তানরা যখন প্রকৃত শিক্ষা থেকে অনেকাংশে বঞ্চিত হচ্ছিল, তখন পূর্ব ইলুহারের বাসিন্দা শম্ভু নাথ সরকারের ছেলে ভারতের শিক্ষা বিভাগে চাকরিরত বিহারী লাল সরকার ১৯১৯ সালের প্রথম দিকে তার পৈত্রিক সম্পত্তিতে নিজের নামে নাম করণ করে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত করেণ। ওই সময়ে প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষাদান বিহারী লাল একাডেমী থেকেই দেওয়া হতো বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। এরপরে ১৯৪১ সালে একই কম্পাউন্ডে পূর্ব ইলুহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। এই বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠায়ও স্থানীয় সরকার বাড়ির পূর্ণ সহযোগীতা ছিলো ওই সময়ে। সেই থেকে বিদ্যালয় দুটি এলাকার আলোর বাতিঘর হয়ে কয়েকটি গ্রামকে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করে চলছে। ওই এলাকার সন্তান প্রয়াত শহীদ বুদ্ধিজীবী সুখরঞ্জন সমদ্দার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ছিলেন।  বর্তমানে বিদ্যালয় দুটি সন্ধ্যা নদীর ভাঙ্গনের কিনারে এসে অবতীর্ণ হয়েছে। যে কোন সময় নদীর করাল গ্রাসে বিলিন হয়ে যেতে পারে ওই এলাকার শিক্ষার্থীদের আলোর বাঁতিঘর এ  বিদ্যালয় দুটি। বিদ্যালয় দুটি ভাঙ্গনের কবল থেকে রক্ষার দাবীতে মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১ টায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। বিদ্যালয় সংলগ্ন নদীর তীব্র ভাঙ্গন স্থানে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয় দুটিকে নদীর ভাঙ্গন থেকে রক্ষার দাবীতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইলুহার ইউপির চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আলমগীর কবির, বিহারী লাল একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান, সাবেক প্রধান শিক্ষক বাবু অনিল চন্দ্র বাড়ৈ, সহকারী শিক্ষক নরেন্দ্র নাথ বাড়ৈ, মো, করিম হোসেন, পূর্ব ইলুহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন কুমার মিস্ত্রী, স্থানীয় ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন, স্বরূপকাঠি উপজেলার সুঠিয়াকাঠি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. রাজু, বানারীপাড়া উপজেলা যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান, স্থানীয় সমাজসেবী সংগঠন চন্দ্রা ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা বৃন্দ, বিদ্যালয় দুটির অন্যান্য শিক্ষক মন্ডলী, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ নানা শ্রেণী পেশার হাজারো নারী-পুরুষ এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নেন। উল্লেখ্য বিহারী লাল একাডেমীর ৪তলা ভিত বিশিষ্ট নতুন ভবনটি  ২ কোটি টাকার বেশি অর্থে নির্মিত হয়েছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ২০২১ সালের প্রথম দিকে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে কাজ শেষে ভবনটি হস্তান্তর করেণ। এ প্রসঙ্গে ইলুহার ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বলেন, এর আগেও বিদ্যালয় দুটি নদীর ভাঙ্গন থেকে রক্ষার দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালণ করা হয়েছিলো। এছাড়াও সংশ্লিষ্ট দপ্তরেও লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দুটি ভাঙ্গন রোধে কোন প্রকার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়নি। একই কথা বলেন, বিহারী লাল একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান ও পূর্ব ইলুহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হেসেন। তারা সহ এলাকাবাসী অভিযোগ করে  আরও জানান, সন্ধ্যা নদী থেকে অব্যাহত ভাবে বেপরোয়াভাবে বালু উত্তোলনের ফলে নদীর ভাঙ্গন ক্রমেই আগ্রাসী হয়ে উঠছে।  তারা সহ মানববন্ধনে উপস্থিত সকলেই বঙ্গবন্ধু কন্যা বিশ্ব মানবতার মুকুট শিক্ষানুরাগী প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা ও বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি এবং স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. শাহে আলমের কাছে বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকার ভাঙ্গন রোধের জন্য কার্যকরী টেকসই পদক্ষেপ গ্রহনের জোর দাবী জানিয়েছেন।

ফেসবুকে লাইক দিন