আজঃ শনিবার ● ১০ই আশ্বিন ১৪২৮ ● ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২১ ● ১৭ই সফর ১৪৪৩ ● রাত ৮:৫৭
শিরোনাম

By: মুক্তি বার্তা

রাত পোহালেই  অর্ধ লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠবে বানারীপাড়ায় বিদ্যাপীঠগুলো

ফাইল ছবি

রাহাদ সুমন, বিশেষ প্রতিনিধি॥ স্কুলের প্রবেশমুখে টাঙানো হয়েছে করোনার সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা সংবলিত ব্যানার। শ্রেণিকক্ষের সামনে রাখা হয়েছে মাস্ক ও সতর্কতামূলক নির্দেশনা। হাত ধোয়ার জন্য পানির ট্যাংক ও কল স্থাপন  করা হয়েছে। মাঠের এক পাশে পানির ট্যাংক বসানো হয়েছে। টবে টবে শোভা পাচ্ছে বাহারী ফুল গাছ।  স্কুলের মাঠ, প্রতিটি কক্ষ,সিঁড়ি ও শৌচাগারগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। প্রতি তলায় বসানো হয়েছে হাত ধোয়ার কল। শ্রেণিকক্ষে সামাজিক দূরত্ব মেনে সাজানো হয়েছে শিক্ষার্থীদের বসার বেঞ্চগুলো। এ ছাড়া লাগানো হয়েছে স্বাস্থ্যবিধির নির্দেশনা ছাপা পোস্টার। দৃশ্যটি  জাতীয় শ্রেষ্ঠ পুরস্কারপ্রাপ্ত বরিশালের বানারীপাড়া বন্দর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। করোনার কারণে প্রায় দেড় বছর বন্ধ থাকার পর আগামীকাল রোববার খুলছে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। এর আগেই শেষ মুহূর্তে প্রস্তুতি নিতে স্কুলটিতে চলছে তোড়জোড়। শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় স্কুল পরিচালনা পর্ষদ ও বানারীপাড়া প্রেসক্লাব সভাপতি রাহাদ সুমনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রস্তুতিমূলক মতবিনিময় সভা। এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন প্রধান শিক্ষক চন্দ্র শেখর,সহকারি শিক্ষক ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন,সহকারি শিক্ষক মোস্তাক আহম্মেদ ও হুমায়ুন কবির,অভিভাবক ও বানারীপাড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সুজন মোল্লা,অভিভাবক ও সরকারি বানারীপাড়া মডেল ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশন ( পাইলট) স্কুলের সহকারি শিক্ষক বীণা মল্লিক,অভিভাবক নুসরাত জাহান,ইসরাত জাহান প্রমুখ। এ প্রসঙ্গে বন্দর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চন্দ্র শেখর বলেন, করোনা মহামারির মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। স্কুলে ঢোকার আগে শিক্ষার্থীদের তাপমাত্রা পরিমাপ করা হবে। বাধ্যতামূলকভাবে তাদের মাস্ক পরতে হবে। কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে তার জন্য আইসোলেশন কক্ষও তৈরি রাখা হয়েছে। শিক্ষকদের সবাই করোনার টিকা নিয়েছেন। সব মিলিয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা হবে। সকালে স্কুলটিতে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে এসেছিল অনেক শিক্ষার্থী, ছিলেন তাদের অভিভাবকেরাও। তারা বলেন, এখন পর্যন্ত স্কুলের প্রস্তুতি সন্তোষজনক। সামনের দিনগুলোয় এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। বানারীপাড়ার অন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও নানা প্রস্তুতি নিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন শিক্ষক-কর্মচারীরা। প্রাথমিক,মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। এ উপজেলার ১২৬ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ প্রায় দুই শত স্কুল,কলেজ ও মাদ্রাসার প্রায় অর্ধলক্ষাধিক শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা উন্মুখ হয়ে আছে। রাত পোহালেই তাদের পদচারনায় আবার মুখরিত হয়ে উঠবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। প্রাণ ফিরে আসবে শিক্ষার আলো ছড়ানো এ বিদ্যাপিঠগুলোতে। এ বিষয়ে বানারীপাড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তফা আলম জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে ক্লাস শুরুর বিষয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো প্রস্তুত করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন কুমার সাহা বলেন, স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলাসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর সার্বিক প্রস্তুতি সন্তোষজনক।

ফেসবুকে লাইক দিন